এ্যাপস সমুহ

Picture

পটুয়াখালী

১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দের ১ জানুয়ারি পটুয়াখালী জেলা গঠিত হয়।  সাবেক বাকেরগঞ্জ জেলার একটি মহকুমা ছিল । এটি খুলনা বিভাগের অর্ন্তভুক্ত ছিল।

পটুয়াখালী  জেলার আয়তন ১৬৭৫ বর্গমাইল বা ৩,২২০.১৫ বর্গ কিলোমিটার।

পটুয়াখালী জেলায় ৯টি থানা (পটুয়াখালী থানা,মির্জাগঞ্জ ,দুমকি,বাউফল,দশমিনা,গলাচিপা,গলাচিপা,কলাপাড়া,রাঙ্গাবালী ও মহিপুর থানা); ৪টি তদন্তকেন্দ্র (কাঠালতলী,কলাগাছিয়া,বগা,চরমোন্তাজ); ১টি পুলিশ ফাঁড়ি(সদর), ২টি  পুলিশ ক্যাম্প (উলানিয়া ও কালিশুরী) রয়েছে । এ জেলায় কর্মরত পুলিশ জনবল   ১২৬৮  জন।

পটুয়াখালী জেলা বঙ্গোপসাগরের উপকূলবর্তী গাঙ্গেয় বদ্বীপ অঞ্চলের জেলাগুলোর অন্যতম। এ জেলা দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত প্রসারিত। জেলার উত্তর সীমান্তে বরিশাল জেলা অবস্থিত ও পশ্চিম সীমানা দিয়ে বলেশ্বর নদী প্রবাহিত। জেলার পূর্ব সীমানা ঘেঁষে তেঁতুলিয়া নদী ভোলাকে পটুয়াখালী থেকে বিচ্ছিন্ন করে দক্ষিণ-পূর্ব মোহনা অভিমুখে অগ্রসর হয়েছে।

পটুয়াখালী জেলায় রয়েছে ৮টি উপজেলা। এ জেলার প্রত্যেকটি উপজেলার মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে অনেকগুলো নদী । যেমন - লাউকাঠি, লোহালিয়া, আন্ধারমানিক পায়রাগঞ্জ,তেঁতুলিয়া, পাঙ্গাশিয়া, আগুনমুখ ইত্যাদি।নদীগুলো বঙ্গোপসাগরে গিয়ে মিশেছে। নদীগুলো জোয়ার-ভাটার আওতাভুক্ত। ৬ ঘণ্টা পর পর জোয়ার-ভাটা হয়।  শীতের মৌসুমে স্রোত ক্ষীণ হয়ে জাগে। তখন জোয়ারের তীব্রতা থাকে সবচেয়ে কম। এ জেলায় আমন ধানের ফলন ভালো হয়।এছাড়া তিল, তিশি,  মুগ ,কলাই ও অন্যান্য রবি ফসল উৎপন্ন হয়। কৃষি মৌসুমে পুঁইশাক,করল্লা,চিটিঙ্গা,বরবটি  ইত্যাদি চাষ হয়।কৃষি ফসলের পাশাপাশি প্রচুর পরিমানে সুপারি ও নারিকেল উৎপন্ন হয় । এ জেলার জেলেরা নদী ও সমুদ্রে ইলিশ , রূপচাঁদা , লটিয়া , কোরাল , পোয়া , পাবদাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ধরে থাকে।

 দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে ১. কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত, ২.কুয়াকাটা বৌদ্ধ মন্দির,৩. কুয়াকাটা  রাখাইন পল্লী ৪.মির্জাগঞ্জ উপজেলায় হযরত ইয়ার উদ্দিন খলিফার মাজার,৫.  দুমকি উপজেলায় পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ৬.   সোনার চর অন্যতম।

পটুয়াখালী জেলায় জন্ম নেয়া বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব   শাহরিয়ার ইসলাম (সাইবার সিকিউরিটি এক্সপার্ট),কবি খন্দকার আব্দুল খালেক,ডঃ শফিকুল ইসলাম মাসুদ (সাবেক ছাত্রনেতা ও সমাজ সেবক), ডাক্তার কামরুন নেছা (ভাষা সৈনিক), এ এন আনোয়ারা বেগম ( ভাষা সৈনিক), এ্যাড: জেবুন নেছা ( ভাষা সৈনিক), স্মরণ ইমাম (কবি), মোজহার উদ্দিন বিশ্বাস (শিক্ষানুরাগী), কলাপাড়ায় কলেজ,স্কুল, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তৈরী করেছেন, তানিয়া আহমেদ (অভিনেত্রী ও চলচ্চিত্র পরিচালক, ওয়াসিমুল বারী রাজীব( চলচ্চিত্র অভিনেতা), হাবিবুল্লাহ বিশ্বাস ( সাবেক ভিপি বি এম কলেজ,পাকিস্তান আমল), শহীদ আলাউদ্দিন(১৯৬৯ এর শহীদ)।

পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

 
Copyright © 2022 RANGE DIG OFFICE, BARISHAL. Developed by Momtaj Trading(Pvt.) Ltd.